পাকিস্তানে পরিবর্তনের আশায় ইমরানের প্রতি জনগণের সমর্থন


, | Published: 04:35 PM, July 27, 2018

IMG

পাকিস্তানে ইমরান খানই যে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন তা এখন অনেকটাই পরিষ্কার। সংবাদ সম্মেলনে দেশের মানুষকে সাথে নিয়ে দেশকে এগিয়ে নেয়ার কথা বলেন ইমরান।  একটা পরিবর্তনের আশায় নতুন একটি দলকে ক্ষমতায় আনার পক্ষে রায় দিয়েছে, সেখানকার মানুষ।

সংখ্যাগড়িষ্টতার জন্য ১৩৭টি আসনের দরকার ছিলো। তবে এখন পর্যন্ত ইমরানের ঝুলিতে সংগ্রহ ১২০টি আসন। তাই সরকার গড়ার জন্য ইমরানকে নির্ভর করতে হচ্ছে, কয়েকটি ছোট দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ওপর। সম্ভাব্য জোট সঙ্গি খুঁজতে সম্ভাব্য দল ও স্বতন্ত্র সাংসদের সঙ্গে এরই মধ্যে আলোচনা শুরু করেছেন ইমরান খান।

এর আগে ফলাফল পরবর্তী প্রথম সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানকে এগিয়ে নেয়ার স্বপ্নের কথা বলেছেন ইমরান খান। তিনি বলেছেন, দেশের গরিব মানুষের পাশে দাঁড়ানোই হবে, তাঁর প্রথম কাজ। তরুণদের জন্য কর্মসংস্থা তৈরি করার কথা বলেছেন। বলেছেন, পাকিস্তানে বিদেশি বিনিয়োগ ফিরিয়ে আনতে হবে। আর এসব কর্মযজ্ঞে বিরোধীদেরকেও সঙ্গে রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।

তবে ইমরানের দেখানো স্বপ্নে, সাধারন মানুষের মানুষের প্রত্যাশা বেড়েছে অনেকটাই।

এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের ভাষায়, ‘ইমরান খান যে নির্বাচনে জয়ী হবেন, সেটা আগে থেকেই আভাষ পাওয়া যাচ্ছিলো। এর করণ হচ্ছে, সবাই একটা পরিবর্তন চাইছিলো, এবং পরিবর্তন দরকারও ছিলো, আরো ভালো কিছুর জন্য, আরো উন্নতির জন্য। যদি আমরা বিগত ৬০-৭০ বছরের দিকে তাকাই, দেশে যেসব নেতা এসেছিলেন, তারা পাকিস্তানকে অপব্যবহার করেছিলেন। সুতরাং, ইমরান খানকে একটা সুযোগ দিতে চান। দেখা যাক কি হয়।’

একজন নারী ভোটার বলছিলেন, ‘যদি পেছন ফিরে তাকানো যায়, তাহলে দেখা যাবে, অনেক নেতাই চূড়ান্ত ফলাফলের আগেই তাদের বিজয় ঘোষণা করেছিলেন। তাহলে ইমরান খান যদি আগে ভাষণ দেন, তাহলে কি এসে যায়। ফলাফল সবার সামনে ঘোষণা করা হয়েছে। অবশ্যই ইমরান একটা পরিবর্তন আনবেন’।

জঙ্গিবাদ, দুর্নীতিসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত পাকিস্তানকে কতদূর নিয়ে যেতে পারেন সাবেক এই বিশ্বজয়ী ক্রিকেট অধিনায়ক সেটাই দেখার বিষয়।










আন্তর্জাতিক বিভাগের আরও সংবাদ