বৃহস্পতিবার প্রতি জেলায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের র‌্যালি


, | Published: 09:14 PM, September 25, 2018

IMG

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল শুরু হতে বাকি আর ৫ দিন। ১ অক্টোবর সিলেট জেলা স্টেডিয়াম দিয়ে শুরু হবে ৬ জাতির এ টুর্নামেন্ট। উদ্বোধনী ম্যাচেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ। লাল-সবুজ জার্সিধারীদের প্রথম প্রতিপক্ষ লাওস। টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বের খেলা হবে সিলেটে, দুটি সেমিফাইনাল কক্সবাজারে এবং ১২ অক্টোবর ফাইনাল ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে।

জাতির জনকের নামের এই টুর্নামেন্টের এটি পঞ্চম আসর। অংশ নেবে তাজিকিস্তান, ফিলিস্তিন, ফিলিপাইন, নেপাল, লাওস ও স্বাগতিক বাংলাদেশ। এবার সব দেশ তাদের জাতীয় দল পাঠাবে বলেই নিশ্চয়তা দিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে। এমনকি বিশ্ব ফুটবলের শাসক সংস্থা ফিফাও জানে এই টুর্নামেন্ট হবে দেশগুলোর জাতীয় দল নিয়ে।

এই প্রথম বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ হচ্ছে ৩ ভেন্যুতে। টুর্নামেন্ট জমজমাট করতে বাফুফে এবার ব্যতিক্রমী প্রচারণাও শুরু করছে। টুর্নামেন্টের পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি, দলগুলোর গ্রুপিং, লোগো উন্মাচণ, থিম সং প্রকাশ, ট্রফি উন্মোচন আলাদা আলাদা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের আমেজ তৈরির চেষ্টা করছে বাফুফে।

ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগমের গাওয়া ‘আয় দলে, আয় বলে’ গাওয়া থিম সং ইতিমধ্যেই পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে প্রতিটি জেলায় জেলায়। শুধু তাই নয়, বৃহস্পতিবার ৬৪ জেলায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের র্যালিও অনুষ্ঠিত হবে জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফএ) উদ্যোগে। বাফুফে প্রত্যেক জেলায় ১০ হাজার করে টাকা ও ব্যানার পাঠিয়ে দিয়েছে ইতোমধ্যে।

শোভাযাত্রা হবে রাজধানী ঢাকায়ও। দুপুরের পর মতিঝিল বাফুফে ভবনের সামনে থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে পল্টন মোড় ঘুরে সেটি শেষ হবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এসে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার রাজধানীর শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেবেন। শোভা যাত্রায় মমতাজের থিম সং বাজবে, ক্যারাভান, ব্যানার, দেশগুলোর পতাকাও থাকবে। বাজবে ঢোল, বাদ্য, বাঁশি।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ দেখা যাবে ৭ দেশে। অংশগ্রহণকারী ৬ দেশের পাশাপাশি ভারতেও দেখা যাবে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ। দেশটির ডি-স্পোর্টস চ্যানেল প্রথমবারের মতো ভারতবাসীকে দেখাবে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের খেলা। স্পন্সর প্রতিষ্ঠান কে-স্পোর্টস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যেও খেলা সরাসরি সম্প্রচারের। বাংলাদেশে বিটিভি, মাছরাঙ্গা ও নাগরিক টিভি খেলা দেখাবে। ধারাবিবরণী দেবে বাংলাদেশ বেতার ও রেডিও ফূর্তি।