বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেক রহমানের যাবজ্জীবন


, | Published: 04:47 PM, October 10, 2018

IMG

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। এই মামলায় সেসময়ের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জমান বাবর এবং আব্দুস সালাম পিন্টুসহ  ১৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আর বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারপারসন তারেক রহমান, হারিস চৌধুরী এবং কায়কোবাদসহ ১৯ আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বুধবার আদালত এই প্রদান করেন। এছাড়া খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ডিউকসহ ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তারা রায়ে অখুশি নয় তবে মাস্টার মাইন্ডের সর্বোচ্চ সাজা হওয়া উচিত ছিল।

পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে স্থাপিত ঢাকার ১ নং দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূরউদ্দিন আজ দুপুর ১২টায় এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ের সময় ৩১ আসামিকে কারাগারে হাজির করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে ২৪ জন নিহত হন। শেখ হাসিনাসহ আহত হন কয়েকশো নেতাকর্মী। মামলার ৫২ আসামির মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি আব্দুল হান্নান ও শরীফ শাহেদুল আলমের ফাঁসি হয়েছে অন্য মামলায়। বাকি আসামিদের মধ্যে ৩১ জন কারাবন্দি ছিলেন। আর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্যরা পলাতক।

রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট যেভাবে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছিল সেভাবে তারেক রহমান এবং বাবরসহ অভিযুক্তরা ষড়যন্ত্র করে শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা করেছি।