‘মাস্টারমাইন্ডের ফাঁসি না হওয়ায় সন্তুষ্ট নয় আ.লীগ’


রাজনৈতিক প্রতিবেদক,সেন্ট্রাল ডেস্ক | Published: 06:43 PM, October 10, 2018

IMG

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট নয় জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এই মামলায় প্ল্যানার বা মাস্টারমাইন্ডের ফাঁসির রায়ের প্রত্যাশায় ছিল আওয়ামী লীগ। 

রায় প্রকাশের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বুধবার দুপুরে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিলম্বিত হলেও আমরা এই রায়ে অখুশি নই। তবে পুরোপুরি সন্তুষ্টও নই। কারণ এ রায়ে হামলার পরিকল্পনার মাস্টারমাইন্ড যে ছিল, তার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হয়নি। এই রায়ের প্ল্যানার ও মাস্টার মাইন্ডের শাস্তি হওয়া উচিত ছিলো ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ১৪ বছর পরে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রধান টার্গেট ছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই হামলার মাস্টরমাইন্ড কে? তা দেশের জনগণ জানে। বিষয়টি প্রকাশ্য দিবালোকের মতো সত্য।

তিনি বলেন, মুফতি হান্নান স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলে গেছেন হামলায় তারেক রহমানের অনুমতি ছিল। এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তখনকার সরকার আলামত নষ্ট করে দিয়েছে। খালেদা জিয়া তখন ক্ষমতায় ছিলেন। কিন্তু সরকার চালাচ্ছিল হাওয়া ভবন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ওই হামলায় আইভি রহমানসহ মোট ২৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে। তখন এফবিআইকে তদন্ত করতে দেওয়া হয়নি। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড ও ইন্টারপোলকে কাজ করতে দেওয়া হয়নি। জজ মিয়া নাটক করা হয়েছে। মুফতি হান্নান স্বীকারোক্তি দিয়েছে অপারেশনের পূর্বমুহূর্তে তারেক রহমানের অনুমতি নেওয়া হয়েছে। হাওয়া ভবন সে সময় ছিল বিকল্প পাওয়ার হাউস।

তিনি বলেন, ১৪ বছর পর রায় নিয়ে আমরা পুরোপুরি খুশি না হলেও সন্তোষ প্রকাশ করছি। কারণ আদালতের প্রতি আমাদের আস্থা আছে।

প্রসঙ্গত, আজ বুধবার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকি ১১ আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে আদালত।