অবকাঠামো কম, তবুও আমাদের চিকিৎসকদের সেবা বিশ্ব সেরা: প্রধানমন্ত্রী


রাজধানী প্রতিবেদক,সেন্ট্রাল ডেস্ক | Published: 10:33 PM, October 29, 2018

IMG

জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) সম্প্রসারণ (১ম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন ভবনের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার বিকালে রাজধানীর শেরে বাংলানগরে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণে একযোগে এসব প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

প্রকল্পগুলোর উদ্বোধন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভায় অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) সম্প্রসারণ (১ম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হাসপাতাল ভবন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই হাসপাতালে উন্নত ও সুন্দর চিকিৎসা হয়। পৃথিবীর কোনো দেশের ডাক্তাররা এত সুন্দর চিকিৎসা করতে পারবেন না।

প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন, সদ্য দেশ স্বাধীন হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা দিতে হবে। তখন পয়সার খুব সংকট। তারপরও মুক্তিযোদ্ধাদের ভালোভাবে চিকিৎসা দেয়ার জন্য পাঁচজন ডাক্তারকে বিদেশে পাঠিয়ে ট্রেনিং দিয়ে এনেছিলেন বঙ্গবন্ধু।

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যদি আগামী নির্বাচনে পুনর্নির্বাচিত না হয়, তাহলে সব অসমাপ্ত উন্নয়ন প্রকল্পের ভাগ্য হবে কমিউনিটি ক্লিনিকের মতো। বিএনপি-জামায়াত জোট ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে সব কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়, যেগুলো দেশের জনসাধারণকে চমৎকার সেবা দিয়ে আসছিল। এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন, ১৯৯৬-২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া অনেক উন্নয়ন প্রকল্প বিএনপি-জামায়াত সরকার বন্ধ করে দিয়েছিল এবং আওয়ামী লীগ ২০০৯ সালে পুনরায় ক্ষমতায় এসে সেসব সম্পন্ন করে জনগণের জন্য খুলে দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে দেশের স্বাস্থ্য খাত উন্নয়নে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সংক্ষেপে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, ‘জনগণের সেবা করা আমাদের দায়িত্ব এবং আমরা তাদের একটি সমৃদ্ধ জীবন দেব।

তিনি জানান, সরকার কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা পুনরায় চালু করেছে এবং বর্তমানে ১৮ হাজারের মতো কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে। রোগীদের বিনামূল্যে ৩০ ধরনের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে।

চিকিৎসা সেবার উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি জানান, ২০০৯ সাল থেকে ১৬টি নতুন সরকারি এবং পাঁচটি নতুন সামরিক মেডিকেল কলেজ স্থাপন করা হয়েছে।

প্রতিটি বিভাগীয় সদরে একটি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী জানান, নিটোর ও অন্যান্য মেডিকেল কলেজে অর্থোপেডিক চিকিৎসকের ৩৬২টি নতুন পদ সৃষ্টি করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, নিটোর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল গনি মোল্লা ও স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব (স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ) মো. সিরাজুল হক খান।

জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) সম্প্রসারণ (১ম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় উদ্বোধন করা ভবনগুলো হলো মিরপুরে ঢাকা ডেন্টাল কলেজের ২৪৮ আসন বিশিষ্টি ছাত্রী হোস্টেল (১০ তলা ভিত বিশিষ্ট ৯ তলা ভবন); মহাখালীতে ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি’র সম্প্রসারিত (৯ তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট) তিন তলা ভবন।

এছাড়াও এক্সপানশন অব ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সস অ্যান্ড হসপিটাল; স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় মহাখালী, ঢাকা’র ৩য় পর্যায়ের উন্নয়নমূলক কাজ (৬-১৫ তলা নির্মাণ) ও জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের উত্তর ও দক্ষিণ ব্লকের ঊর্ধ্বমুখি সম্প্রসারণ কার্যক্রমের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।