১০০ টাকায় নিউমোনিয়ার চিকিৎসা প্রযুক্তি উদ্ভাবন করলেন যোবায়ের চিশতি


, | Published: 02:10 PM, October 30, 2018

IMG

মাত্র একশ’ টাকা খরচে নিউমোনিয়ার চিকিৎসা! বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ডা. যোবায়ের চিশতির এ উদ্ভাবন এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সমাদৃত। দেশে এই পদ্ধতি কাজে লাগাতে সরকারের সাথে কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন তিনি। বলছেন, পুরোপুরি এই উদ্ভাবন ব্যবহার করা গেলে শিশু মৃত্যু হার অর্ধেকেরও নিচে নামিয়ে আনা সম্ভব।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র- আইসিডিডিআরবি’র আইসিইউতে ছয় মাসের সন্তানের সুস্থতার অপেক্ষায় বিবি আয়েশা। জানালেন, দু’দিন আগে চিকিৎসা নিতে যখন এসেছিলেন তখন শিশুটির অবস্থা আরও খারাপ ছিল। তবে এখন অনেকটাই উন্নতির দিকে তার সন্তান।

গত ছয় বছর ধরে আয়েশার সন্তানের মতো এক হাজারের বেশি নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশু আইসিডিডিআরবি’র বিনামূল্যে চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছে। এই শিশুদের সুস্থ করেছেন এখানকার জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ডা. যোবায়ের চিশতি। ব্যবহার করেছেন একশ’ টাকা খরচে উদ্ভাবিত চিকিৎসা পদ্ধতি, যার নাম 'বাবল সিপ্যাপ'। যেখানে অন্যান্য হাসপাতালে আক্রান্ত শিশুর শ্বাস-প্রশ্বাস চালু রাখতে যে ভেন্টিলেটরটি ব্যবহৃত হয়, তাতে খরচ পড়ে অন্তত ৫ হাজার টাকা।

পদ্ধতিটিতে, প্লাস্টিকজাতীয় বা অন্য কোন বোতলে পানি ভরে তাতে দুটি প্লাস্টিকের টিউব সংযোজন করা হয়। শিশুরা একটি টিউব দিয়ে অক্সিজেন টানে আরেকটি টিউব দিয়ে নি:শ্বাস ছাড়ে। নি:শ্বাস ছাড়ার টিউবটি পানিতে ডোবানো থাকে। ফলে এক ধরণের বুদবুদ তৈরী হয়। এই বুদবুদের সৃষ্ট চাপ শিশুর ফুসফুস খোলা রাখতে সহায়তা করে।  

ফুসফুসের প্রদাহজনিত রোগ নিউমোনিয়ার এই চিকিৎসা পদ্ধতিটির কারণে এই চিকিৎসক পেয়েছেন ‘মোস্ট প্রমিজিং চাইল্ডহুড নিউমোনিয়া ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’। এরই মাঝে নেপাল, ইথিওপিয়া পদ্ধতিটির ব্যবহার শুরু করেছে