মার খেয়েও সিদ্ধান্তে অটল মেয়র আইভি


Hasib, | Published: 07:35 PM, January 17, 2018

IMG

হকার ইস্যু নিয়ে গোলাগুলি ও সংঘর্ষের ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

তিনি বলেছেন, আমি আমার সিদ্ধান্তে অটল আছি এবং থাকব। কোনোভাবেই ফুটপাতে হকারদের বসতে দেয়া হবে না। শামীম ওসমানের নির্দেশে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। তারা আমাদের ওপর একতরফা হামলা চালিয়েছে। আমার ভাই, আমার আত্মীয়-স্বজন দেখে বেছে বেছে হামলা চালিয়েছে তারা। এ বিষয়ে আমি আইনি পদক্ষেপ নেব।

তিনি আরও বলেন, হকারদের জন্য হকার্স মার্কেট করে দেয়া হয়েছে। ঢাকায় হকারদের উচ্ছেদ করা হয়েছে। সেই হকাররা যদি নারায়ণগঞ্জে এসে আমাকে ফুটপাতে বসতে দিতে হবে বলে আন্দোলন করে তাহলে কি আমি তাদের বসতে দিতে পারি। হকারদের শহরে দু’টি স্থান ঠিক করে দেয়া হয়েছে তারা সেখানে বসতে পারে। বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে কখনও হকার বসতে পারবে না।

বুধবার বিকেল ৩টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে মেয়র আইভী এসব কথা বলেন। এ সময় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি বলেন, আমাকে মেরে ফেললে আমার কোনো আপত্তি ছিল না। আমার লোকদের যেভাবে পিটিয়ে আহত করলো তা খুবই দুঃখজনক। হকার নেতারা আমার সঙ্গে মিটিং করেছে। তাদের বুঝিয়ে ফুটপাতে না বসে অন্য জায়গায় বসার জন্য বলেছি। তাদের বিষয় নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের সঙ্গে আমার আলাপ চলছিল। হঠাৎ করে শামীম ওসমান উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

এ সময় পুলিশ প্রশাসনের সমালোচনা করে মেয়র আইভী বলেন, পুলিশ প্রশাসনের সামনে আমার লোকজনের ওপর হামলা চালানো হলেও তারা কিছুই করেনি। পুলিশ প্রশাসন জানতো শামীম ওসমানের লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালাবে। তারা যদি আমাকে আগে থেকে সেই তথ্য জানাতো তাহলে আমি লোকজন নিয়ে ফুটপাত দিয়ে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে গিয়ে কথা বলার চিন্তা করতাম না।

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও এমপি শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের ঘটনায় মেয়র আইভীসহ উভয় গ্রুপের প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হন। এ নিয়ে মেয়র আইভী ও এমপি শামীম ওসমান একে অপরকে দোষারোপ করেছেন।