‘ডাক্তারদেরও সচিব করার দাবি সংসদে’


, | Published: 09:31 PM, January 28, 2018

IMG

স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ডাঃ রুস্তম আলী ফরাজী বলেছেন, একসঙ্গে বিসিএস দিয়ে সরকারি চাকরিতে ঢুকলেও প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তারা সচিব হন, কিন্তু তাদেরই বন্ধু যারা মেডিকেল কলেজে পড়ে ডাক্তার হয়েছেন তারা হন সিনিয়র মেডিকেল অফিসার বা বড়জোর আরএমও। তারা যোগ্যতা অনুযায়ী সেখানে যেতে পারছেন না।

প্রকৌশলীদের ক্ষেত্রেও একই রকম। তারা এখন কোনো কাজের জন্য তাদের সমসাময়িক বন্ধুদের অফিসে এসে জি হুজুর বলে দাঁড়িয়ে থাকেন। এটা হতে পারে না। এটা খুবই দৃষ্টিকটু। এ সময় তিনি দেশের বিভিন্ন পেশার যোগ্য কর্মী বিশেষ করে চিকিৎসক, ইঞ্জিনিয়ার, কৃষিবিদদের যোগ্যতা অনুযায়ী প্রমোশন দেওয়ার জন্য একটি আলাদা কমিটি গঠনের আহ্বান জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে গতকাল ৭১ বিধিতে আনা জরুরি জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নোটিসের বক্তব্য দিতে গিয়ে এই আহ্বান জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, এখন শত শত সচিব-সিনিয়র সচিব রয়েছেন, তাদের অনেকেই কাজ করেন না, আবার অনেকেই কাজ জানেনও না।

সচিবালয়ে নিচের দিকের কর্মকর্তা কম, কিন্তু ওপরে বেশি। অনেকে তদবির করে ওপরের দিকে গিয়ে অভিজ্ঞতা না থাকার কারণে কাজ করেন না। সে কারণে বর্তমানে প্রশাসন স্থবির হয়ে পড়েছে। বেতন-ভাতা বাড়িয়ে দেওয়ার পরও তাদের কাজের গতি বাড়েনি। এরা বুয়েট বা মেডিকেলে চান্স না পেয়েও তদবিরের জোরে আজ সচিব।

এ সময় ফরাজী আরও বলেন, প্রকৌশলী, ডাক্তার, কৃষিবিদদের যোগ্যতা অনুযায়ী প্রমোশনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। তাদেরও একটা পর্যায়ে সচিব, সিনিয়র সচিব পর্যায়ে প্রমোশনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। তা না হলে তারা কর্মস্পৃহা হারিয়ে ফেলবেন। প্রশাসনে বৈষম্য সৃষ্টি হচ্ছে। তারা আজ হতাশ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করে রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, বিশেষ করে দেশের এসব মেধাবী সন্তান প্রকৌশলী, ডাক্তার, কৃষিবিদদের জন্য একটা আলাদা কমিটি করে কীভাবে তাদের যোগ্য প্রমোশন দেওয়া যায় তার একটি রূপরেখা তৈরি করা প্রয়োজন।