মঙ্গলবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় নামছেন শেখ হাসিনা


রাজনৈতিক প্রতিবেদক, | Published: 08:55 PM, January 29, 2018

IMG

ওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) থেকে তিনি এ নির্বাচনী প্রচারণায় নামছেন। এদিন হজরত শাহজালালের (রহ.) মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে তিনি শুরু করবেন নির্বাচনী সফর। নির্বাচনী প্রচারণায় একইদিনে সিলেটে জনসভায় বক্তব্য দেবেন তিনি। সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আওয়ামী লীগের নেতাদের ভাষায় এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনানুষ্ঠানিক প্রাক নির্বাচনী সফর। তবে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর তিনি আবারো সারা দেশে সফর শুরু করবেন।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সিলেট সফরের পর ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালে জনসভা করবেন তিনি। এভাবে আটটি বিভাগীয় শহরে পর্যায়ক্রমে নির্বাচনী সফর করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। এরপর নামবেন জেলা সফরে।

ইতোমধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের ১৫টি সাংগঠনিক টিম মাঠে নেমেছে। কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে গঠিত এ টিমের সদস্যরা ২৬ জানুয়ারি থেকে সারা দেশে সফর শুরু করেছেন।

দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে মূলত তারা দলকে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করতেই মাঠে নেমেছেন। এ সফরের মধ্য দিয়ে তারা বিভিন্ন জেলা, উপজেলায় দলীয় কোন্দল নিরসন ও কর্মীদের নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করছেন। আওয়ামী লীগের ৭৬টি সাংগঠনিক জেলা সফর করবে এ ১৫টিম।

সরকারের চার বছর পূর্তি উপলক্ষে গত ১২ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন কখন হবে ও কীভাবে হবে, সেই বার্তা দেন। সব দলের অংশগ্রহণ আশা করলেও সংবিধান মেনে তার নেতৃত্বাধীন নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে এটাও স্পষ্ট করেছেন তিনি।

জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মাঠ পর্যায়ে ইতোমধ্যে রাজনৈতিক উত্তাপ শুরু হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের নেতারা বিভাগে ও জেলায় জেলায় সফর শুরু করলে নির্বাচনী উত্তাপ আরও বাড়বে বলেই মনে করছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

আওয়ামী লীগ ও সরকারি সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফরে মাজার জিয়ারত, রাজনৈতিক সমাবেশ ছাড়াও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কর্মসূচি রয়েছে। দলীয় প্রধান ইতোমধ্যে নির্দেশনা দিয়েছেন যে এখন থেকে ঢাকার বাইরে প্রধানমন্ত্রীর যত সরকারি সফর হবে, সবকটিতেই রাজনৈতিক সমাবেশের আয়োজন থাকবে।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনও মাথায় : দলের কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিভাগীয় সফর শুরু করা হচ্ছে জাতীয় নির্বাচনের পাশাপাশি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন মাথায় রেখে। আগামী মার্চ-এপ্রিলে গাজীপুর, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট ও বরিশাল এ পাঁচ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন হওয়ার সম্ভবানা রয়েছে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচনের আচরণবিধি অনুসারে প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী ও এমপিরা নির্বাচনের সময় ভোট দেয়া ছাড়া কোনো প্রচারে অংশ নিতে পারেন না। এ জন্য সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই বিভাগীয় সফর শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

সিলেটে নিরাপত্তা জোরদার : এদিকে আমাদের সিলেট সংবাদদাতা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিলেট সফরকে ঘিরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সের (এসএসএফ) দেয়া ছক অনুযায়ী সাজানো হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব (গণমাধ্যম) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবার সকালে সিলেট যাবেন। প্রথমে তিনি হযরত শাহজালাল (রহ.), হযরত শাহপরাণ (রহ.) এবং গাজী বুরহান উদ্দিনের মাজার জিয়ারত করবেন। এ উপলক্ষে এ তিন আউলিয়ার মাজার ও আশপাশ এলাকাগুলোতে বিশেষ গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সিলেট নগরীতে চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

নির্বাচনী জনসভায় যা তুলে ধরা হবে : সিলেট সফর প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আওয়ামী লীগকে অবারো বিজয়ী করতে হলে প্রচার-প্রচারণার প্রয়োজন আছে। গত ৯ বছরে সরকার অনেক উন্নয়ন করেছে। এসব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনগণের মধ্যে তুলে ধরতে বিভিন্ন জনসভা ও সফরের আয়োজন করা হয়েছে। উন্নয়নের খবরগুলো জনগণ জানতে পারলে অবশ্যই আবার তারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন।

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনমুখী দল। তৃণমূল পর্যায়ে দলকে প্রস্তুত করতে দলের নেতারা সাংগঠনিক সফরে নেমেছেন। দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বিভাগীয় ও জেলা সফর করে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করবেন।