রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর বাড়ছে মূলধন ঘাটতি


, | Published: 06:05 PM, April 03, 2018

IMG

রাষ্ট্রীয় মালিকানায় থাকা ব্যাংকগুলোর বাড়ছে মূলধন ঘাটতি। আর ঘাটতি পূরণে দুই হাজার কোটি টাকা দেয়ার চিন্তা সরকারের। বিশ্লেষকরা বলছেন, জনগণের করের টাকায় ঘাটতি পূরণ শুধু অনৈতিকই নয়, এটি দুর্নীতিও।

সোনালী ব্যাংক। ব্যাংকটির শাখা, জনবল আর সেবা, সব দিক থেকেই সবচাইতে বড় ব্যাংক। তবে বড় ব্যাংক, বড় তার মূলধন ঘাটতিও। বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব বলছে, গেলো সেপ্টেম্বরের ৩ হাজার ১৪০ কোটি টাকার ঘাটতি ডিসেম্বরেই দাড়ায় ৫ হাজার ৩ শত ৯৭ কোটি টাকায়।

সোনালীর পাশাপাশি এ তালিকায় আছে জনতা, রুপালী, বেসিক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকসহ ছয় ব্যাংক। হিসাব বলছে, গেলো বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত ছয় ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি ১৭ হাজার ৪৪০ কোটি টাকা।

মূলধন ঘাটতি করেছে ব্যাংক। কিন্তু দায় নিচ্ছে সরকার। কারণ অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এই ঘাটতি পূরণে দুই হাজার কোটি টাকা চায়। মূলত এই টাকা জনগণের করের টাকা।

খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বলেন, এভাবে করের টাকা দেয়া এক প্রকার দুর্নীতি। এভাবে টাকা দিতে থাকলে ব্যাংকগুলো আর দাড়াতে পারবে না।

অবশ্য এভাবে টাকা দেয়া নতুন নয়। এটি চলে আসছে ২০১১-১২ অর্থবছর থেকেই ধারাবাহিকভাবে। চলতি অর্থ বছরও বাজেটে এ জন্য রাখা আছে ২০০০ কোটি টাকা।