দুই সিটিতে আ’লীগের প্রার্থী খালেক ও জাহাঙ্গির


রাজনৈতিক প্রতিবেদক,সেন্ট্রাল ডেস্ক | Published: 08:58 AM, April 09, 2018

IMG

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শক্তিশালী প্রার্থী চাইছিল খুলনা আওয়ামী লীগ। আর তাদের বিবেচনায় সাবেক মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক সবচেয়ে যোগ্য। আর প্রার্থী হিসেবে তাকে বেছে নেয়ায় দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস দেখা গেছে।

গত ৩১ মার্চ এই নগরে ভোটের তফসিল হওয়ার পর থেকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ প্রার্থিতা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে। কারণ দলের অন্তত আট জন নেতা ভোটে আগ্রহী হলেও তাদেরকে যুতসই মনে করেননি নেতা-কর্মী সমর্থকরা। তারা শুরু থেকেই চাইছিলেন পাঁচ বছর আগে হেরে যাওয়া খালেক আবার নির্বাচন করুন।

কিন্তু খালেক এখন বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য। ওই পদ ছেড়ে খুলনায় ভোটে দাঁড়াতে আগ্রহ নেই বলে তিনি ঢাকাটাইমসসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমকে জানান।

তবে খুলনা আওয়ামী লীগের মতো কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগও খালেককেই খুলনায় সবচেয়ে ভালো প্রার্থী হিসেবে ধরে নিয়েছিল। আর তিনি যেন সংসদ সদস্য পদ ছেড়ে নির্বাচন করেন, সেই অনুরোধও তাকে করা হয়। আর তার ছেড়ে দেয়া আসনে স্ত্রী হাবিবুন নাহারনে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টিও জানানো হয় তাকে।

তারপরও খালেদ দলের মনোনয়ন ফরম কেনেননি। তবে মনোনয়ন ফরম কেনা সাত নেতার সঙ্গে তাকেও ডেকে পাঠান আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। আর স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্তে খালেকের হাতেই তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয় নৌকা।

অন্যদিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছেন সমর্থকরা।

রবিবার রাতে ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব তাকে এ মনোনয়ন দেয়।

এ খবর পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গে উল্লাসে ফেটে পড়েন অনুসারী  নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ীরা। তারা আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেন। রাতে বোর্ড বাজার এলাকায় অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন আহমদ মহির নেতৃত্বে আনন্দ মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

এ সময় নেতাকর্মীরা বলেন, গণমানুষের আশা আকঙ্খা ও স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার প্রতীককে নির্বাচনে বিজয়ী করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা।