তদন্তেও সহযোগিতা করছে না সেই ডিআইজি মিজান


রাজধানী প্রতিবেদক,সেন্ট্রাল ডেস্ক | Published: 07:10 PM, May 07, 2018

IMG

আলোচিত পুলিশ কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে তদন্তে অসহযোগিতার মামলা করা হবে বলে জানিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

কমিশনের সচিব মো. শামসুল আরেফিন জানান, দুদকের অনুসন্ধান দলের কাছে সম্পদের কিছু নথিপত্র জমা দেওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তা না দেওয়ায় এ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছেন তারা।

এ বছরের জানুয়ারিতে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানের বিরুদ্ধে স্ত্রী-সন্তান রেখে আরেক নারীকে জোর করে বিয়ে ও নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে।

এ নিয়ে তোলপাড়ের মধ্যেই এক নারী সংবাদ পাঠককে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ ওঠে মিজানের বিরুদ্ধে। পরে তাকে ডিএমপি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি তার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করে দুদক।

গত ৩ মে সেগুন বাগিচায় দুদক কার্যালয়ে মিজানকে ৭ ঘণ্টা ধরে বিভিন্ন বিষয়ে বিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদক কর্মকর্তার। সে সময়ই তাকে রবিবারের মধ্যে নিজের অর্জিত সম্পদের পক্ষে কিছু নথিপত্র হাজির করতে বলা হয়।

দুদক সচিব মো. শামসুল আরেফিন সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, “দুদকের অনুসন্ধানের জন্য কিছু নথি গতকালের মধ্যে দুদকে নিয়ে আসার কথা ছিল ডিআইজি মিজানের। কিন্তু তিনি গতকালের মধ্যে জমা দেন নাই। এভাবে যদি তদন্তে অসহযোগিতার ধারা অব্যাহত থাকে তাহলে দুদক আইনের ১৯/৩ ধারা মোতাবেক তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।”

ডিআইজি মিজান পুলিশের উচ্চ পদে থেকে তদবির, নিয়োগ, বদলিসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতিতে জড়িয়ে নানা উপায়ে শত কোটি টাকার মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে দুদকের হাতে।

সেসব অভিযোগ যাচাই-বাছাই শেষে অনুসন্ধানের জন্য গত ১০ ফেব্রুয়ারি দুদকের উপ-পরিচালক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারীকে অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ করে দুদক।

মিজানের বিরুদ্ধে ওঠা বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি তদন্তও চলমান।