আন্দোলন স্থগিত, ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন অব্যাহত থাকবে


, | Published: 08:17 PM, May 14, 2018

IMG

প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসের উপর আস্থা রেখে রাজপথের আন্দোলন স্থগিত করেছে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।
সারাদিন আন্দোলন এবং শাহবাগে অবস্থানের পর সন্ধ্যার পর সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান আন্দোলকারীরা।

দ্রুতই আসছে কোটা বিষয়ে প্রজ্ঞাপন। সরকারের এমন ঘোষণার পর তা আজকের মধ্যেই প্রকাশের দাবি জানায় আন্দোলনকারীরা। দাবি আদায়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন, ধর্মঘট পালনের পাশাপাশি শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয় তারা। ফলে রাজধানীজুড়ে তৈরী হয় তীব্র যানজট। এরপর সন্ধ্যায় প্রেস ব্রিফিং করে প্রজ্ঞাপন জারি হওয়া পর্যন্ত ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করার ঘোষণা দেয় আন্দোলনকারীরা।

প্রধানমন্ত্রীর কোটা বাতিলের ঘোষণার পর থেকে প্রজ্ঞাপন আকারে সেটি প্রকাশের দাবি জানিয়ে আসছে আন্দোলনকারীরা। দাবি বাস্তবায়নে সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ক্লাস পরীক্ষা বর্জন ও ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেন তারা।
 
সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে বিক্ষোভ  শুরু করে আন্দোলনকারীরা। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয় ও আশপাশের সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শাহবাগে এসে শেষ হয়। সেখানে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন তারা। 

আর  তাদের সাথে একাত্মতা জানিয়ে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, রংপুর, বরিশাল, সিলেটসহ সব বড় বড় শহরের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যায়।

অন্যদিকে শিগগিরই প্রজ্ঞাপন দেওয়া হবে বলে সচিবালয়ে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম।

আর বাণিজ্যমমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, কোটা সংস্কার বিষয়ে গ্রহণযোগ্য ও বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।

তবে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের ঘোষণার প্রেক্ষিতে আন্দোলনকারীরা বলেন, প্রজ্ঞাপন না হওয়া পর্যন্ত তারা শাহবাগেই অবস্থান করবেন। 

উল্লেখ্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মূখে গত ১২ এপ্রিল জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোটা বাতিলের ঘোষণা দেন।