নানা রেকর্ড আর ঘটনাবহুল রাশিয়া বিশ্বকাপ


, | Published: 04:53 PM, July 06, 2018

IMG

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রযুক্তির ছোয়ায় পেয়েছে এক নতুন রূপ। যোগ হয়েছে ভিডিও এসিসট্যান্ট রেফারি। এ প্রযুক্তির ব্যবহারে বেড়েছে গোলসংখ্যাও। গ্রুপ পর্ব ও নকআউট রাউন্ড শেষে মোট ৫৬ ম্যাচে গোল হয়েছে ১৪৬টি। রেকর্ড হয়েছে পেনাল্টি ও আত্মঘাতি গোলের।

দুই পর্ব শেষ, হাসি কান্নার মঞ্চ থেকে বিদায় নিয়েছে আর্জেন্টিনা, জার্মানি, স্পেন ও পর্তুগালের মতো দল। তবে লিওনেল মেসি, ইনিয়েস্তা-রোনালদোরা গোল করে রেখে গেছেন স্মৃতি। এখন পর্যন্ত প্রতি ম্যাচে গোল গড় ২ দশমিক ৬০ শতাংশ।

রাগবির মতো এবার ফুটবল মাঠের রেফারিকে সহায়তায় নিয়ে আসা হয়েছে ভিএআর। প্রযুক্তি কারণে বেড়েছে পেনাল্টি। এখন পর্যন্ত রেকর্ড ২৮টি পেনাল্টি দিয়েছে রেফারি। যার মধ্যে গোল হয়েছে ২১টি।

সেভ কিংবা ব্যর্থ হয়েছে ৭টি। ব্যর্থতার তালিকায় রয়েছেন লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর মতো তারকাও।

এবারের আসরে প্রথম গোল করে উদ্বোধনী ম্যাচে রাশিয়ার গাজিনস্কি। তবে আত্মঘাতি গোলও কম হয়নি। গুনে গুনে ১০টি।

দ্রুততম গোলের মালিক ডেনমার্কের মাথিয়াস জার্গেনসন। নকআউট পর্বে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে ৫৮ সেকেন্ডে গোলটি করেন তিনি।

প্রতিপক্ষের জালে সবচেয়ে বেশি বার বল পাঠিয়েছে বেলজিয়াম, ১২টি গোল নিয়ে এ রয়েছে সবার শীর্ষে। অন্যদিকে সবচেয়ে বেশি ১১টি গোল হজম করেছে প্রথমবার বিশ্বকাপের মঞ্চে খেলতে আসা মধ্যআমেরিকার দেশ পানামা।

গ্রুপ পর্বে অসাধারণ সব ম্যাচ, ইনজুরি টাইমে গোল, হ্যাটট্রিক কি না ছিল? হ্যাটট্রিক করেছেন পতুর্গালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও ইংল্যান্ডের হ্যারি কেন। ৬ গোল নিয়ে গোল্ডেন বুটের দাবিতে এগিয়ে কেন।

৩৭ বছর ১২০ দিন বয়সে বিশ্বকাপে এসে বয়স্ক খেলোয়াড়ের তকমা গলায় ঝুলিয়েছেন পানামার অধিনায়ক ফিলিপে বালয়।

নানাভাবে আলোকিত এবারের বিশ্বকাপে সামনের দিনগুলো ঘটবে আরো কিছু রোমাঞ্চকর ঘটনা। আর ফুটবল প্রেমিদের হৃদয়ে অমলিণ হয়ে থাকবে রাশিয়া বিশ্বকাপ।