কবি আল মাহমুদের ৮৩ তম জন্মদিন


, | Published: 06:59 PM, July 11, 2018

IMG

সাহিত্যকে একজন কবি যতদিক দিয়ে আলোকিত করতে পারেন, তার পুরোটাই করেছেন তিনি। তাঁর চিন্তা-ভাব- রস-ছন্দ-আর বোধে উদ্ভাসিত বাঙালি এবং বাংলা সাহিত্য। তিনি কবি আল মাহমুদ। যদিও তাঁর রাজনৈতিক আদর্শের অবস্থান নিয়ে বিস্তর বিতর্ক রয়েছে। সোনালী কাবিনের এই অমর স্রষ্টার ৮২ বছর পূর্ণ হলো হলো। তাঁর জন্মদিনে আমাদের অভিনন্দন।

কবি হবার প্রেষণায়, ঢাকা এসেছিলেন ভাঙ্গা এক জাদুর বাক্স নিয়ে। বয়স তখন মাত্র ১৮। সেই বাক্স থেকে বের করা তার গ্রামীণ বাংলার আবহমান  রূপে, থমকে যাওয়া পথিক হয়েছেন বাংলার পাঠক।

আল মাহমুদের কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ ও উপন্যাসের সংখ্যা অনেক। তার জাদুর কলম থেকে একের পর এক বিস্ময়কর কাব্য সৃষ্টির মাধ্যমে বাংলা কবিতায় যোগ হতে থাকে সোনালি পালক। ৭৩-এ এই  জাদুর বাকসো পাঠকের হাতে আসে সোনালি কাবিন নামেই। বাঙালির কাব্য মানসে যেটি নিয়েছে পাকাপোক্ত আসন।

ঠিক তার কবিতার মতোই বড্ড তাড়া যেন কোথাও যাবার। তবে ৮৩তম জন্মদিনটি অনেকটা চুপচাপ কাটাতে হচ্ছে এই কবিকে। মাস ছয়েক হলো, চির সরব এই মানুষটি একে বারেই চুপ। কথা বলেন না।

কবিদের ‘শেষ’ একটা অভিমান থাকে, আল মাহমুদেরও কি আছে ? তবে এই একটি উত্তর অবশ্য জাদুর বাক্সের মালিক দিলেন বেশ জোর গলায়।  তার ছেলে তাকে প্রশ্ন করেন আব্বা কোন রাগ আছে? ঘুরতে যাবেন? কবির উত্তর: না, নাহ’।

কবিতার পংক্তিতে পংক্তিতে বাংলাদেশের জল-কাঁদার গন্ধ তুলে আনা এই কবির জন্ম ১৯৩৬ এর ১১ জুলাই। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। কবি জীবনের পাওয়া না পাওয়া কিংবা রাজনৈতিক আদর্শ নিয়ে বহু আলোচিত-সমালোচিত হলেও, আধুনিক বাংলা কবিতার অন্যতম প্রধান কবি হিসেবে পাঠকমহলে ব্যাপক সমাদৃত।