বড় ব্যবধানে জয় পেলেন সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা


রাজধানী প্রতিবেদক,সেন্ট্রাল ডেস্ক | Published: 12:11 AM, July 14, 2018

IMG

সাংবাদিকদের সবচেয়ে বড় সংগঠন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি পদে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছেন সারাবাংলা ডটনেট ও গাজী টিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা। মহাসচিব পদে নির্বাচিত হয়েছেন দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সাংবাদিক শাবান মাহমুদ।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) রাতে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএফইউজে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়। সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা পেয়েছেন ১ হাজার ১০৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ড. উৎপল কুমার সরকার পেয়েছেন ৭৬৫ ভোট। মহাসচিব পদে শাবান মাহমুদ পেয়েছেন ১ হাজার ৯৬০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাকারিয়া কাজল পেয়েছেন ৭শ’ ভোট।

তবে সভাপতি পদ প্রার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে এদিন ফল ঘোষণা স্থগিত রাখা হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার আলমগীর হোসেন জানান, সভপতি পদপ্রার্থীরা কে কত ভোট পেয়েছেন তা ফের গণনা করা জানানো হবে।

এবারের নির্বাচনে ফারুক-শাবান-দীপ পরিষদ ও জলিল-কাজল-মধু পরিষদ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা অংশ নেন। ফারুক-শাবান-দীপ পরিষদে সভাপতি পদে ওমর ফারুক, সহ-সভাপতি সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা ও মহাসচিব পদে শাবান মাহমুদ, যুগ্ম-মহাসচিব রফিকুল ইসলাম সবুজ, কোষাধ্যক্ষ দীপ আজাদ, দফতর সম্পাদক পদে হেমায়েত হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

জলিল-কাজল-মধু পরিষদে সভাপতি পদে আবদুল জলিল ভুঁইয়া, সহ-সভাপতি ড. উৎপল কুমার সরকার ও মহাসচিব পদে জাকারিয়া কাজল, যুগ্ম-মহাসচিব নাসিমা আক্তার সোমা, কোষাধ্যক্ষ মধুসূদন মণ্ডল, দফতর সম্পাদক পদে বরুণ ভৌমিক নয়ন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

এছাড়া এই পরিষদে নির্বাহী সদস্য পদে, জহুরুল ইসলাম টুকু, খায়রুজ্জামান কামাল, শেখ মামুনুর রশিদ ও আখতার জাহান মালিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। প্যানেলের বাইরে স্বতস্ত্র প্রার্থী হিসেবে সভাপতি পদে মোল্লা জালাল, কোষাধ্যক্ষ পদে নজরুল কবির, যুগ্ম-মহাসচিব পদে আবদুল মজিদ, খায়রুল আলম, দীপংকর গৌতম, ফজলুল হক বাবু ও মানিক লাল ঘোষ, দফতর সম্পাদক পদে রেজাউল করিম রেজা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন, সেবিকা রানী, মীর আফরোজ জামান, আবদুল খালেক লাভলু, শামসুর রহমান ও আখতার জাহান মালিক।

এদিন (শুক্রবার) সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে বিএফইউজে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলে। সন্ধ্যায় শুরু হয় গণনা। ঢাকায় মোট ৩ হাজার ২৪৯ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দেন ১ হাজার ৯১৮ জন। সনাতন পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হলেও গণনা করা হয় মেশিনে (ইভিএম)।

ফল ঘোষণার আগেই সভাপতি পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোল্লা জালাল ও তার সমর্থকদের দাবি প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ফের গণনা শেষে পরবর্তীতে ফল ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নেয়।